November 29, 2020, 1:03 am
শিরোনাম:
রায়পুর-ফরিদগঞ্জ সড়কে আনন্দ বাসের ধাক্কায় মটরসাইকেল আরোহী নিহত উইঘুর মুসলিম নারীদের ইলেক্ট্রিক শক দিয়ে গর্ভপাত করছে চীন সরকার চীনে নতুন ফ্লু ভাইরাস শনাক্ত, রয়েছে মহামারির শঙ্কা: বিবিসি লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নুরউদ্দিন চৌধুরী নয়ন করোনায় আক্রান্ত। দৈনিক আমাদের লক্ষ্মীপুর এর সম্পাদক ও প্রকাশক বায়েজীদ ভূঁইয়া তাকে দেখতে যান।

উৎপাদন কম,মূল্যে খুশি রায়পুরে সুপারি বাগানীরা

নিজস্ব প্রতিনিধি : উৎপাদন কম হলেও বিক্রয় মূল্যে অধিক হওয়ায় খুশি লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুরের সুপারি চাষিরা। টানা অতিবৃষ্টির কারণে এবছর সুপারি উৎপাদনে নির্দিষ্ট লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়নি বলে জানিয়েছেন এখানকার বাগানীরা। বিশেষ করে অতিবৃষ্টিতে বাগানে সৃষ্ট জলাবদ্ধতায় সুপারি গাছের মুকুল ঝরে যাওয়ার কারণে অন্যান্য বছরের তুলনায় এবছর প্রায় অর্ধেকাংশ উৎপাদন কম হয়েছে বলে জানা যায়।

উপজেলার ৩নং বাবুরহাট এলাকার পাইকারি সুপারি বিক্রেতা সোহাগ পাটাওয়ারী জানান, এবছর উৎপাদন কম হলেও বিক্রয় মূল্য এবার অন্যান্য বছরের তুলনায় ডবল পেয়েছেন বাগানীরা,এতে করে উৎপাদন কম হলেও বাগানীরা খুবই খুশী, তবে যদি জলাবদ্ধতার এই সমস্যা না হতো তাহলে এখানে এবার বাগানীরা অধিক মুনাফা অর্জন করতে পারতেন। রায়পুর উপজেলার ১০টি ইউনিয়নেই বড় বড় সুপারি বাগান রয়েছে। এখানে প্রায় ১৫ হাজার হেক্টর জমিতে সুপারি উৎপাদন হয়ে থাকে। সুপারি চাষের জন্য বছর জুড়ে তেমন পরিশ্রমও করতে হয়না বাগানীদের।

প্রতিবছর আশানুরুপ ফল ও পেয়ে থাকেন তারা,কিন্ত এবছর উপজেলা জুড়ে জলাবদ্ধতার কারণে কাঙ্খিত লক্ষ্যমাত্রা থেকে বঞ্চিত হতে হয়েছে। এবছর সুপারি বিক্রয়ের শুরুতে কাঁচা সুপারি খুচরা বাজারে প্রতি পোন ২২০ টাকা থেকে ৩শ টাকা এবং প্রতি কাওন ৩২শ টাকা থেকে ৩৫শ টাকা মূল্যেও বিক্রি করতে পেরেছেন বলে জানান বিক্রেতারা। বর্তমানে মাঝামাঝি সময়ে এসে পোন প্রতি ১২০ টাকা থেকে ১৫০ টাকা হারে ক্রয় বিক্রয় হতে দেখা যাচ্ছে।

অন্যান্য বছর এ মূল্য সর্বক্ষেত্রেই অর্ধেক থাকতে দেখা গিয়েছে। অপরদিকে রায়পুর বাজারের অন্যতম সুপারি ব্যাবসায়ী সাঈদ হোসেন জুটন জানান এবার শুকনা সুপারির মূল্যও অধিক ছিল । ২৮০ টাকা থেকে ৩শ টাকা প্রতি কেজি সুপারি ক্রয় বিক্রয় হয়েছে। বিক্রেতারা এবার অনেক খুশি হয়েছে।

উল্লেখ্য,রায়পুরের এতদ্ব উপজেলা থেকে প্রতি বছর দেশের বিভিন্ন স্থানে কাঁচা সুপারি,শুকনা সুপারি এবং ভেজানো সুপারি কয়েক হাজার টন দেশের বিভিন্ন স্থানে রপ্তানি হয়ে থাকে। প্রায় প্রতি বাড়ির প্রতি গৃহস্তেরই সর্ব নিম্ন ৫০ থেকে শ’খানেক সুপারি গাছ রয়েছে। রায়পুর উপজেলা উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মামুনুর রশীদ বলেন জলাবদ্ধতা নিরসনে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ প্রশাসনের সর্বাত্নক প্রচেষ্টার প্রয়োজন রয়েছে,অন্যথায় এসমস্যা আরও ব্যাপক আকার ধারণ করতে পারে।



ফেসবুক পেইজ

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
৬২,৫৫০,৬১৬
সুস্থ
৪৩,১৭৩,১৫০
মৃত্যু
১,৪৫৭,৪২৯