মেঘনার ভাঙন থেকে রক্ষায় জাতীয় মসজিদ বাইতুল মোকাররমসহ লক্ষ্মীপুরের রামগতি ও কমলনগরের শতাধিক মসজিদে জুমার নামাজ শেষে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে।
শুক্রবার (৭ মে) বাদ জুমা বাইতুল মোকাররমে মোনাজাত পরিচালনা করেন সিনিয়র ইমাম হাফেজ ও মুফতি মো. মিজানুর রহমান। ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নেয় নদী ভাঙন নিয়ে আন্দোলনরত সংগঠন কমলনগর-রামগতি বাঁচাও ম ।
ভাঙনের শিকার মানুষজন অভিযোগ করছেন, নদীভাঙন রোধে প্রকল্প বিগত ১০ বছর মন্ত্রণালয়ে আটকে আছে। সবশেষ উপায় না পেয়ে আল্লাহর কাছে সাহায্য চেয়ে এ দোয়ার আয়োজন করা হয়।
সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ও ম‌ঞ্চের আহবায়ক আবদুস সাত্তার পালোয়ান বলেন, ‘যেভাবে নদী ভাঙছে, মহান রাব্বুল আলামিনের রহমত ছাড়া এ ভাঙন প্রতিরোধ সম্ভব নয়। তিনি চাইলে পুরো রামগতি-কমলনগর নদী ভাঙন থেকে রক্ষা করতে পারেন।’ গত ৩৬ বছর ধরে মেঘনার অব্যাহত ভাঙনে বিলীন হচ্ছে লক্ষ্মীপুরের রামগতি ও কমলনগর। নদীর ভাঙনে ভিটেমাটি, সহায়-সম্বল হারিয়ে অসহায় মানবেতর জীবনযাপন করছেন এখানকার লক্ষাধিক মানুষ।
নদী ভাঙনে হারিয়ে গেছে এখানকার বহু গুরুত্বপূর্ণ সরকারি-বেসরকারি স্থাপনা। তবুও নদীভাঙন রোধে স্থায়ী কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। ফলে, নদীভাঙন আতঙ্কে বসবাস করছে এখানকার ৫ লাখ মানুষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.