October 27, 2021, 7:36 pm
ব্রেকিং :
বেগমগঞ্জে মন্দিরে হামলাকারী ৬ জন লক্ষ্মীপুর র‌্যাবের হাতে আটক লক্ষ্মীপুর কমলনগরে বাড়ি থেকে বের হয়ে ২ বোন নিখোঁজ সম্প্রীতি নষ্ট করতে একটি মহল ষড়যন্ত্র করছে: লক্ষ্মীপুরে সাবেক বিমানমন্ত্রী ওমানে ঘূর্ণিঝড় শাহিনের আঘাতে লক্ষ্মীপুরের ৩ জন নিহত বাংলাদেশে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহৃত হচ্ছে গুজব ও মিথ্যা ঘটনা সৃষ্টির জন্য পুলিশের আইজিপি লক্ষ্মীপুরে জাতীয় কন্যা দিবস উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশ হাউজ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী লক্ষ্মীপুরে জেলে পরিবারের সদস্যদের করোনা সুরক্ষা ও ভ্যাকসিন প্রাপ্তিতে সভা লক্ষ্মীপুরে হত্যা মামলায় দুইজনের যাবজ্জীবন, পৃথক মামলায় যুবকের ১০ বছর সাজা লক্ষ্মীপুরে আইসিভিজিডি কর্মসূচির উপজেলা পর্যায়ে অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত
শিরোনাম:
রায়পুর-ফরিদগঞ্জ সড়কে আনন্দ বাসের ধাক্কায় মটরসাইকেল আরোহী নিহত উইঘুর মুসলিম নারীদের ইলেক্ট্রিক শক দিয়ে গর্ভপাত করছে চীন সরকার চীনে নতুন ফ্লু ভাইরাস শনাক্ত, রয়েছে মহামারির শঙ্কা: বিবিসি লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নুরউদ্দিন চৌধুরী নয়ন করোনায় আক্রান্ত। দৈনিক আমাদের লক্ষ্মীপুর এর সম্পাদক ও প্রকাশক বায়েজীদ ভূঁইয়া তাকে দেখতে যান।

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে ব্যাংকের লকার থেকে গ্রাহকের ৬ ভরি স্বর্ণ উধাও

ইসলামী ব্যাংক লক্ষ্মীপুরের রায়পুর শাখার লকারে ২৮ ভরি স্বর্ণালঙ্কার জমা রেখেছিলেন নাজমুন নাহার নাম এক গ্রাহক। লকারের চাবিও তার কাছেই ছিল। রবিবার ব্যাংক গিয়ে লকার খুলে দেখেন ৬ ভরি স্বর্ণালঙ্কার উধাও।

এ ঘটনায় ওই রাতেই রায়পুর থানায় লিখিত অভিযাগ করেছেন তিনি। সোমবার দুপুরে ঘটনাস্থর পরির্দশন করে ব্যাংক ম্যানজারের বক্তব্য শুনেছে পুলিশ। ভুক্তভোগী নাজমুন নাহার ওই উপজেলার বামনী গ্রামের নজির আহমদের স্ত্রী।

রবিবার বিকালে ব্যাংক থেকে স্বর্ণালঙ্কার আনতে গিয়ে বিষয়টি টের পান তিনি। অভিযোগ সূত্র জানা গেছে, ২০২১ সালে জানুয়ারি মাসে নাজমুন নাহার ইসলামী ব্যাংকের রায়পুর শাখায় একটি লকার একাউট খোলেন। তাকে ব্যাংকের ১৮ নম্বর লকারটি ব্যবহারের জন্য দেওয়া হয়। তিনি সেখানে ছোট-বড় দুটি হার, একটি নেকলেস, দুই জােড়া চুড়ি, এক জােড়া কানের দুল, এক জােড়া ঝুমকা, একটি বড় আংটিসহ ২৮ ভরি স্বর্ণালঙ্কার রাখেন।

লকারের একটি চাবি নাজমুন নাহারকে দেওয়া হয়, অন্যটি রেখে দেয় ব্যাংক কর্তপক্ষ। নাজমুন নাহার জানান, গত ৯ মাসে লকারটি একবারের জন্যও খােলা হয়নি। রবিবার দুপুরে তিনি ব্যাংকে গিয়ে ১৮ নম্বর লকারটি খুলে দেখতে পান সেখানে কিছু স্বর্ণালঙ্কার নেই। বিষয়টি ব্যাংক কর্তপক্ষকে জানালে তারা টালবাহানা শুরু করে।

পরে ম্যানেজার এস-২০ নম্বর লকারটি খুলে ২২ ভরির মতাে স্বর্ণালঙ্কার বের করেদেন। ম্যানজারের কাছে ১৮ নম্বর লকারের স্বর্ণ ২০ নম্বর যাওয়া এবং ৬ ভরি স্বর্ণ কম থাকার কোন ঘটনা ব্যাখ্যা দিতে না পারায় রবিবার রাতেই নাজমুন নাহার রায়পুর থানায় লিখিত অভিযােগ করেন। ইসলামী ব্যাংকের রায়পুর শাখার ম্যানজার মাে. মুজাহিদুল ইসলাম বলেন, ব্যাংকের লকার চার স্তরের নিরাপত্তাবেষ্টনী আছে।

লকার থেকে স্বর্ণ চুরি বা উধাও করা কঠিন। লকারের কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলে শিগগিরই আমরা এর সমাধান করবো। গ্রাহকের অভিযােগ পেয়ে পুলিশ তদন্ত করে গেছে। ভুক্তভোগী গ্রাহক নাজমুন নাহার বলেন, ওমরাহ করতে যাওয়ার আগে বাড়ি থেকে ২৮ ভরি স্বর্ণালঙ্কার এনে ব্যাংকের লকারে রেখেছি। এখন লকার খুলে পেয়েছি ২২ ভরি।

একটি চেইন, দুটি কানের দুল, দুটি রিং ও একটি নুপুর পাওয়া যায়নি। এগুলাের ওজন ৬ ভরি। পুলিশ ব্যাংকে গিয়ে তদন্ত করেও অনেক গড়মিল পেয়েছে। রায়পুর থানার ওসি আব্দুল জলিল বলেন, ব্যাংকের লকার থেকে স্বর্ণ গায়েবের অভিযােগ পেয়েছি। সরেজমিনে গিয়ে ব্যাংক ম্যানজারের বক্তব্য নেয়া হয়েছে। তদন্ত শেষে বিস্তারিত জানা যাবে।



ফেসবুক পেইজ

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু

বিশ্বে

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু