স্টাফ রিপোর্টার:
লক্ষ্মীপুর জেলার দুই শতাধিক সরকারি ও বেসরকারি স্কুলের পঞ্চম শ্রেণির এক হাজার পাঁচশ’ ছাত্রছাত্রীর অংশগ্রহণে আইডিয়াল ফাউন্ডেশন বৃত্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (১৭ ডিসেম্বর) সকালে লক্ষ্মীপুর ন্যাশনাল আইডিয়াল স্কুলের তিনটি ভবনে একযোগে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের অভিভাবক ও শিক্ষকগণ এই আয়োজনে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন।

জানা গেছে, এ পরীক্ষায় প্রথম স্থান অর্জনকারী শিক্ষার্থীকে একটি ল্যাপটপ, সম্মাননা স্মারক ও সার্টিফিকেট প্রদান করা হবে। একই সাথে আরও চারশ’ শিক্ষার্থীকে পুরষ্কৃত করার কথা জানিয়েছেন আইডিয়াল ফাউন্ডেশন কর্তৃপক্ষ। এছাড়াও বৃত্তিপ্রাপ্তদের বিনাখরচে লক্ষ্মীপুর ন্যাশনাল আইডিয়াল স্কুলে পড়ার সুযোগ রয়েছে। তাই এমসিকিউ ও বৃত্ত ভরাট পদ্ধতিতে ১০০ নম্বরের এ পরীক্ষার জন্য শিক্ষার্থীদের ১০০মিনিট সময় দেয়ার পাশাপাশি প্রকৃত মেধাবীদের খুঁজে বের করতে প্রশ্নপত্রকে ‘ক, খ, গ ও ঘ’ এই ৪টি সেটে ভাগ করা হয়।

পরীক্ষা চলাকালীন সময় হল পরিদর্শন করেন- লক্ষ্মীপুর ন্যাশনাল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, উপাধ্যক্ষ মো. হাবিবুর রহমান সবুজ ও লক্ষ্মীপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি সামছুদ্দিন বাবুল প্রমুখ।

অভিভাবকরা জানান, দীর্ঘ ছুটির পর আইডিয়াল ফাউন্ডেশন বৃত্তি পরীক্ষার মাধ্যমে শহর ও গ্রামের শিক্ষার্থীদের মধ্যে একটা সমন্বয় হলো। এতে একে অন্যের প্রস্তুতি ও বৈশিষ্ট্য সম্পর্কে ধারণা নিতে পেরেছে। তাছাড়া এ পরীক্ষা অনেকটা বিসিএস প্রিলিমিনারী পরীক্ষার আদলে হওয়ায় শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ জীবনে এটি ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে বলে মনে করছেন তারা। সুশৃঙ্খল পরিবেশে পরীক্ষা নেয়ায় আয়োজকদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন অভিভাবকদের অনেকেই।

লক্ষ্মীপুর ন্যাশনাল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের উপাধ্যক্ষ মো. হাবিবুর রহমান সবুজ বলেন, “প্রতিবছরের ন্যায় এবারও আইডিয়াল ফাউন্ডেশন বৃত্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শিক্ষার্থীদের মেধাবিকাশ ও মানোন্নয়নে প্রতিযোগিতামূলক মনোভাব সৃষ্টি করতে আমাদের এ আয়োজন। তাছাড়া বৃত্তিপ্রাপ্তদের বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা প্রদানের মাধ্যমে উচ্চ শিক্ষা অর্জনে উদ্বুদ্ধ করাই এ পরীক্ষার মূল লক্ষ্য।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *