August 10, 2020, 2:39 am
শিরোনাম:
রায়পুর-ফরিদগঞ্জ সড়কে আনন্দ বাসের ধাক্কায় মটরসাইকেল আরোহী নিহত উইঘুর মুসলিম নারীদের ইলেক্ট্রিক শক দিয়ে গর্ভপাত করছে চীন সরকার চীনে নতুন ফ্লু ভাইরাস শনাক্ত, রয়েছে মহামারির শঙ্কা: বিবিসি লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নুরউদ্দিন চৌধুরী নয়ন করোনায় আক্রান্ত। দৈনিক আমাদের লক্ষ্মীপুর এর সম্পাদক ও প্রকাশক বায়েজীদ ভূঁইয়া তাকে দেখতে যান।

শিক্ষা বিষয়ে গুজব সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ

শিক্ষা সংক্রান্ত বিষয়ে গুজব ছড়ানো হলে বা এমন চেষ্টা করলে তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। গুজব সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে জেলা প্রশাসকদের নির্দেশনাও দিয়েছেন তিনি।

এছাড়া র্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে গুজব ও মিথ্যা প্রচারণাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানান মন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার (২৩ জুলাই) সন্ধ্যায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

ডা. দীপু মনি বলেন, ‘কোভিড-১৯ -এর বিস্তার রোধ ও শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আগামী ৬ আগস্ট পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া হলে আনুষ্ঠানিকভাবে বা বিজ্ঞপ্তি দিয়ে বিস্তারিত জানানো হবে। এ বিষয়ে আগে থেকে কেউ কোনো গুজব ছড়ালে ও মিথ্যা প্রচারণা চালালে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এদিকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে জাতীয় শিক্ষা বোর্ডের নাম ব্যবহার করে বলা হয়, ঈদের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলছে। বুধবার (২২ জুলাই) মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয় খবরটি গুজব। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার বিষয়ে মিথ্যা প্রচারণা চালানোর পর আইনি ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানালেন মন্ত্রী।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এক শ্রেণির মানুষ শিক্ষা সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে মিথ্যা প্রচারণা চালাচ্ছে। ঈদের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার বিষয়ে আমরা এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নেইনি। অথচ জাতীয় শিক্ষা বোর্ডের নামে প্রচারণা চালানো হচ্ছে। প্রকৃতপক্ষে জাতীয় শিক্ষা বোর্ড নামে কোনো শিক্ষা বোর্ড নেই।’

মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা, শিক্ষক ও অভিভাবকদের সচেতন থাকতে অনুরোধ জানিয়েছেন ডা. দীপু মনি। তার ভাষ্য, ‘যখন সময় হবে আমরা গণমাধ্যমে জানিয়ে দেব কখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হবে এবং কবে পরীক্ষা নেয়া হবে।’



ফেসবুক পেইজ

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
২০,০২৩,০১৯
সুস্থ
১২,৮৯৭,৮১৫
মৃত্যু
৭৩৩,৯৭৬